আমাদের ব্যাচ থেকে ইনকাম শুরু !!! অভিনন্দন সবাইকে

Click Valley Outsourcing

অনেক তো লেখালেখি করি, আজকে চলুন একটি ছোট্ট গল্প দিয়ে শুরু করা যাক। গল্পটির নাম হল অন লাইন থেকে “প্রথম আয়ের গল্প” ও ফ্রিল্যান্সিং

এইত সে দিনের কথা। এক জন দুই জন করে অন লাইন এ কিভাবে ক্যারিয়ার গড়া যায় এ নিয়ে আমাদের কাছে জানতে আসা শুরু করে অনেকে। তার মধ্যে অনেকের কাছে এমন প্রশ্নও শুনতে হয়েছে যেমন ধরুনঃ

  • আমি কি পারবো এত কিছু শিখতে?
  • ফ্রেল্যান্সিং / আউটসোর্সিং করে কি ইনকাম করা যায়?
  • আমি তো ইংরেজিতে দুর্বল, আমি কি পারবো?
  • এ বিষয়ে আমার কোন পূর্ব অভিজ্ঞতা নেই, তাহলে কিভাবে?
  • এত কম সময়ে এত কিছু কি করে শিখবো?
  • আমি একজন গৃহিণী। আমাকে দিয়ে কি এ কাজ শেখা সম্ভব?
  • আমার নানা কাজে অনেক ব্যাস্ত থাকতে হয়, মাত্র দুই তিন ঘণ্টা করে চর্চা করলে কি কাজ শেখা যাবে?
  • ভাই, আমি তো কিছুদিন কাজ করেছি কিন্তু ওরা তো আসলে টাকা দেয় না।
  • কোর্সের ফি টা অনেক বেশি। ছাড় থাকলে জানাবেন।

ঠিক আর তেমন মনে করতে পারছি না এই মুহূর্তে।

বরাবরের মত রবোটিক আনসার দিতে দিতে একেক সময় নিজেকে মনের অজান্তেই প্রশ্ন করতাম, আচ্ছা আর কি ভাবে উত্তর দিলে উনাদের বুঝাতে সক্ষম হব?

তারপর যেমন চিন্তা তেমন কাজ। সবকিছু সবাইকে বুঝাতে হবে আর সবাই সবকিছু বুঝবে এমন ধারনা থেকে নিজেকে গুটিয়ে এনে শুরু হল অন্য এক চিন্তা চেতনার।

আর তা হল কাজ শিখিয়ে ইনকাম কিভাবে শুরু করে দেখান যায়?

শুরু হল একে একে ক্লাস, এসাইনমেনট, Group Discussion এবং পরিশেষে প্রোজেক্ট ইনটার্নশিপ। পাশাপাশি চলতে থাকলো বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে কিভাবে একাউনট, প্রফাইল/পোর্টফলিও তৈরি করা যায় ইত্যাদির কাজ।

তবে যে কথাটা না বললে পুরো গল্পটাই উলট পালট হয়ে যেত। আর তা হল প্রচণ্ড রকমের পরিশ্রম, ধৈর্য এবং মনোবল। না সেটা শুধু আমাদের নয়, তাদের যারা আজকে আমাদের সাথে ফ্রিল্যান্সিং শিখে আয় করছেন।

এ এক দারুন অনুভুতি যা বলে বা লিখে বুঝান যাবে না।

যেমন ধরুন, একটি শিশু যখন হামাগুরি দিতে দিতে প্রথম নিজের পায়ে দাঁড়াতে শেখে এবং এক পা দু পা করে চলতে শেখে, একজন বাবা মা হিসেবে ঠিক যেমন টি অনুভূত হয়, অনেক টা তেমনি।

আজকের লিখা গুলো সম্পূর্ণ টা তাঁদের কে উৎসর্গ করলাম যারা দিন রাত পরিশ্রম করে, অনেক প্রতিকুল অবস্থার মধ্যে দিয়ে সময় কাটিয়ে একটু একটু করে এগুচ্ছেন সফলতার দিকে।

শুভ কামনা রইল সবার জন্য, সহজ হোক আগামীর পথচলা।

জানি লেখাটি পরে অনেকে যা যা জানতে চাইবেনঃ

শিখবো কোথায়?
কিভাবে?
কাজ শিখার পর কি হবে?

নিচের পোস্ট টি খুব ভাল ভাবে পরে চটপট জেনে নিন, আর নিজেকে প্রশ্ন করুন “আমি তৈরি তো?”

প্যাকেজ কোর্স সমুহঃ

১) এস ই ও (সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন) ।
২) প্রফেশনাল ই-মেইল মার্কেটিং।
৩) এস এম এম (সোশিয়াল মিডিয়া মার্কেটিং)।
৪) গ্রাফিক্স ডিজাইন।
৫) ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট।
৬)সি পি এ (কোস্ট পার একশন)মার্কেটিং।
৭) আর্টিকেল রাইটিং।

• কোর্সের মেয়াদঃ ৪ – ৬ মাস।
• ক্লাসঃ সপ্তাহে ২ – ৩ দিন।
• ক্লাসের সময়সীমাঃ ১ ঘণ্টা প্রতি ক্লাস।
• রেজিস্ট্রেশান ফীঃ ৫০০০/= এক কালীন।
• মাসিক ফিঃ ১০০০/= টাকা।

ব্যাবসাই বা চাকুরীজীবী দের জন্য থাকছে সান্ধ্যকালীন ব্যাচ।

ভর্তি হতে যা যা লাগবেঃ

১) ২ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি।
২) জন্ম নিবন্ধন বা জাতীয় পরিচয় পত্র।
৩) রেজিস্ট্রেশান ফী ।

কোর্স শেষে আমাদের সেবা সমুহঃ

• বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে কিভাবে প্রফাইল তৈরি করবেন।
• ক্লায়েন্ট কিভাবে ডিল করবেন।
• আই টি বিজনেস কিভাবে শুরু করতে পারবেন।
• রিয়াল লাইফ প্রোজেক্ট এ ইন্টার্ন শিপ (একমাত্র মনোযোগীদের জন্য) ।
• আমাদের মাধ্যমে যারা সফল ভাবে কোর্স সম্পন্ন করে প্রোজেক্ট এ কাজ করছেন তাদের মাধ্যমে কোর্স বিষয়ক যেকোনো পরামর্শ।
• লাইফ টাইম সাপোর্ট।

বিস্তারিত জানতে চলে আসুন নিচের ঠিকানায়ঃ

ক্লিক ভ্যালী আউটসোর্সিং এন্ড অনলাইন শপিং

১৩, গজনবি কমপ্লেক্স, শান্তিকুঞ্জ মোড়।
বেবি স্ট্যান্ড রোড, টাঙ্গাইল।
মোবাইলঃ ০১৭৩০৫৮৪২০১
ই-মেইলঃ contact@clickvalleybd.com
ওয়েব সাইটঃ https://clickvalleybd.com

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *