Blog

আপনি কি সফলভাবে Email Campaign সম্পন্ন করতে চান? তাহলে এখনই দেখে নিন ১১টি দুর্দান্ত ধাপ

Best Email Marketing Tips

আপনি কি জানেন কিভাবে একটা Email campaign রান করা যায় ? আপনার Email marketing strategy যদি কাজ করে তাহলে তো এটা একটা চমৎকার ব্যাপার। প্রতিদিন মোট প্রায় ২৬৯ বিলিয়ন Emails sent করা হয়। আর এখানে অনেক বেশি Competition করতে হবে Audience’s এর attention পাওয়ার জন্যে। 

ইমেল নম্বরগুলিও বাড়তেই থাকে, আর এই কারনে আমদেরকে Email Marketing Strategy শিখতে হয়।

যেনো আমরা আমাদের টার্গেট Audienceদের কাছে পৌছাতে পারি এবং তাদের চাহিদা পুরণ করতে পারি। 

এখানে আপনাদের সাথে আলোচনা করব কিভাবে Email Marketing Strategy শিখে।

আপনারা একটা Successful email marketing campaign চালাতে পারেন যাতে আরো বেশি Attention, engagement, leads এবং sales পেতে পারেন।

Email Marketing Campaign আসলে কি ?

Email marketing campaign হচ্ছে একটি নির্দিষ্ট ব্যবসা থেকে কিছু নির্দিষ্ট কাস্টমারের কাছে ই-মেইল পাঠানো।

আর এটা পাঠানোর কারন হলো একটা Successful email marketing campaign করার মাধ্যমে আপনি আপনার ব্যবসার পরিচিতি বাড়াতে পারবেন, আপনার ব্যবসার Engage বাড়াতে পারবেন এবং তার সাথে আপনি আরো বেশি Leads ও Sales পাবেন।

আসলে Email marketing পন্থাটা ব্যবহার করার বড় সুবিধাটা হচ্ছে মানুষ অনেক বেশি ই-মেইল ব্যবহার করে থাকে।

বাস্তবে অনেকের রিসার্চ থেকে এটা প্রমাণিত যে, প্রায় ৯০% Adults এবং ৭৪% Teenagers এখনো প্রতিদিন ই-মেইল ব্যবহার করছে।  

আর এই কারনে Email marketing মনে হয় সবচেয়ে উপযুক্ত, কাস্টমারদের সাথে ভালো সম্পর্ক গড়ে তোলার ও আপনার  leads এবং sales বাড়ানোর জন্য।

কিন্তু একটা Successful email marketing campaign চালানোর আগে।

আপনাকে অবশ্যই কিছু Email Marketing Strategy সম্পর্কে জানতে হবে, যাতে আপনি আপনার Email campaign সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করতে পারেন।

চলুন তাহলে যেনে নেয়া যাক এমন ১১টি ধাপ যা আপনাকে successful email marketing campaign করতে সাহায্য করবে।

1. একটি Targeted Email List তৈরিকরুনঃ

একটা Successful email marketing campaigns তখনই শুরু হয় যখন আপনার কাছে Qualified leads এর একটি Email list থাকে।

যারা আপনার অফার এ interest রাখে। একটা Targeted ই-মেইল লিস্ট তৈরি করার সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে আপনার Website এর visitorsদের আপনার Subscribers এ convert করা।

কিন্তু আপনি কি জানেন গড়ে প্রায় ৮০ শতাংশ মানুষই আপনার Newsletter এ sign up না করে চিরতরে হারিয়ে যায় আপনার ওয়েবসাইট থেকে।

আর এই কারনে আমদের পরামর্শ হচ্ছে যে আপনারা Exit-intent popups ব্যবহার করুন এতে আপনি সেই সব Abandoning visitorsদের Subscribers অথবা Customers এ পরিণত করতে পারবেন।

Exit-intent popups ইউজারদের খুঁজে বের করতে সাহায্য করে, যাতে তারা আপনার ওয়েবসাইট থেকে বের হওয়ার সময় চিরতরে হারিয়ে না যায়।

এই পদ্ধতিটি আপনার জন্যে খুবই ফল্প্রসু হতে পারে।

আপনার ব্যবসার জন্যে  Exit intent popup কিভাবে কাজ করে?  আমাদের case studies গুলো দেখুনঃ

  • কিভাবে BrianTracy.com তাদের Email List ১৫০% বাড়ালো Content Upgrades এর মাধ্যমে?
  • SnackNation প্রতি সপ্তাহে ১২০০ Segmented Leads নতুন করে যোগ করে।
  • কিভাবে Wild Water Adventures $৬১,০০০,  OptinMonster ব্যবহার করে রিকভার করে Sales  এ।

2. আপনার লক্ষ্য নির্ধারণ করুনঃ

সব ভালো Marketing শুরু হয় একটা ভালো লক্ষ্য নির্ধারণের মাধ্যমে। আর এই দিকে Email marketing এর ক্ষেত্রেও এটা ভিন্ন কিছু না।

আর একটা Successful email marketing campaign করার জন্যে আগে চিন্তা করুন আপনি কি অর্জন করতে চান।

Email marketing campaign এর আদর্শ লক্ষ্য বলতে-

  • নতুন Subscribersদের Welcome করুন এবং আপনার ব্যবসা সম্পর্কে জানান, এতে তাদের সাথে আপনার একটা সম্পর্ক গড়ে উঠবে।
  • আপনার কন্টেন্ট এবং ব্যবসার মাধ্যমে Engagement Boost করুন, যার ফলে আপনার Webinar কিছুটা প্রোমোট হবে ও প্রাথমিক কিছু সেলও হবে।
  • Existing subscribersদেরকে হাতে রাখার জন্যে মাঝে মাঝে কিছু সুযোগ সুবিধা প্রদান করা। এতে তারা আরো বেশি ইন্টারেস্ট খুঁজে পাবে। .
  • যারা Particularly active না তাদের আবার পুনরায় Engagement এ আনার ব্যবস্থা করা।  
  • Segmenting এর মাধ্যমে আপনার Subscribersদের আলাদা করুন ,এতে আপনি টার্গেট ইমেইল ক্যাম্পেইন সহজে করতে পারবেন।  আপনি কিন্তু আপনার Conversion goals অনুসারে আপনার Email marketing goals সেট করতে পারেন।

3. Email এর ধরণ বুঝুনঃ

আপনি কি কি ধরনের ই-মেইল পাঠাতে পারবেন তা যেনে নেওয়াটাও আপনার জন্যে খুবই গুরুত্বপূর্ন।

বিভিন্ন পদ্ধতিতে এগুলো ভাগ করলেও আমরা আপনাদের সাথে মুলত তিনটি গুরুত্বপূর্ন Email types নিয়ে কথা বলব।

আমরা সবাই Promotional emails এর সাথে নিশ্চয়ই পরিচিত, যেখানে মুলত বিভিন্ন অফার, সেলস ও Self-promotional এর কাজ হয়ে থাকে।

এছাড়াও রয়েছে Relational emails, এই ই-মেইল এর মাধ্যমে আপনি আপনার Subscribersদের চাহিদা পুরণ করতে পারেন,

যেমনঃ Weekly newsletter, a free gift, relevant information যেগুলো তাদের প্রয়োজনীয় এবং এমন অনেক কিছু।

আরকটি হলো Transactional emails-

  • Subscriber signup নিশ্চিত করা
  • Welcome Messages দেয়া
  • Order অথবা Purchase confirm করা
  • এছাড়াও রয়েছে Acknowledgements of changes to subscriber information।

Transactional emailsগুলো আসলে আপনার Subscribers’দের কর্মকাণ্ডের উপর নির্ভর করে করা হয়ে থাকে।

এখনতো আপনি জেনেই গেলেন যে কোন কোন Email আপনি পাঠাতে পারবেন , তাহলে চলুন পরবর্তী স্টেপ সম্পর্কে ধারণা নিই।

4. আপনার  Audience সম্পর্কে জানুনঃ

আপনি যদি একবারের জন্যেও Email marketing করে থাকেন তাহলে আপনি বুঝে যাবেন যে কারা আপনার Audience।

আপনি যদি প্রথম বারের মতো শুরু করতে যান, তাহলে ঘাবরাবেন না। আপনাকে বুদ্ধি দিয়ে শুরু করতে হবে আপনার Target content এর জন্যে।

প্রথমেই Subscriber সংগ্রহ করুন এর পর আপনার প্রথম Email campaign টা শুরু করে দিন।

তারপর সেই Subscriberদের real data রেকর্ড করে রাখলে পরের Email campaignটা আপনি Real target অনুযায়ী করতে পারবেন।

এমনকি আপনি Google Analytics এবং আপনার Social media profiles এর মাধ্যমে ডাটা সংগ্রহ করতে পারেন।

ফেসবুক Insights থেকে আমরা এমন অনেক তথ্য পেতে পারি

যেমনঃ Demographics, Location, এবং Interests, এসব থেকে আপনি আপনার টার্গেট কাস্টমার পেয়ে যাবেন।

এটাই হতে পারে আপনার একটা ভালো স্টারটিং যার মাধ্যমে আপনি আপনার Successful email marketing campaigns করতে পারেন।

আর এই জন্য আপনকে Email Marketing Strategy জানতে হবে।

5. বুদ্ধি দিয়ে Technology ব্যবহারঃ

সবচেয়ে ভালো Email marketing services গুলো আপনাকে অত্যাধুনিক tools দিয়ে সাহায্য করবে।

যাতে আপনি একটি Successful email marketing campaigns চালাতে পারেন।

আর এই বৈশিষ্ট্য গুলো হতে পারেঃ

  • সহজে Campaign creation এবং Automation এর জন্যে রয়েছে Templates ও Workflows যা আপনার কাজ আরো বেশি সহজ করে তুলবে।
  • WordPress এবং OptinMonster এর মতো Softwareগুলোর সাথে Integrations এর মাধ্যমে আপনার কাজ আরো কমে যাচ্ছে।
  • আপনার টার্গেট audienceদের  segment করার সুবিধা পাবেন।
  • আর গভীরতর Analytics করার সুযোগ পাচ্ছেন Email campaign performance এর উপর।

যেমন বলতে গেলে Mailchimp’s automations এর বৈশিষ্ট্য গুলো আপনাদের অনেক বেশি কাজে আসবে।

যেনো খুব সহজেই বিভিন্ন ধরনের ইমেইল সেন্ড করতে পারেন আপনার সাবস্ক্রাইবারদের কাছে। তাহলে সফল ইমেইল ক্যাম্পেইন এর জন্যে অবশ্যই টেকনলজির সুষ্ঠ ব্যবহার করতে হবে।

6. সবচেয়ে ভালো Optins গুলো তৈরি করুনঃ

এটাতো নিশ্চিত যে একটা Successful campaign এর জন্যে অবশ্যই আপনার Email list এ মানুষ থাকা লাগবে।

আর এর জন্যে করতে হবে কি জানেন? আপনাকে Attractive optin যুক্ত Forms তৈরী করতে হবে।

যাতে আপনি মানুষের Attentionটা নিতে পারেন এবং তাদের উৎসাহী করতে পারেন সাইন আপ করার জন্যে। যেমনঃ

  • Welcome gates দিতে পারেন। আপনার সাইটে যখন মানুষ আসবে তখন এটা প্রতীয়মান হবে।
  • Lightbox popups, এটা যেকোনো পেজ এ প্রতিয়মান হয়ে অস্থায়ীভাবে পেজ খালি করে আপনার অপশনটাকে ফোকাস করে।  এর মাধ্যমে ভালই কনভার্সন হয়ে থাকে। 
  • Exit-intent popups, এটা তখন আসে যখন মানুষ পেজ থেকে বের হয়ে আসবে। আর এটা খুবই উপযুক্ত সময় লিড বারানোর।  

7. Plan Emails and Followups

আপনি যখন আপনার লক্ষ্য নির্ধারণ করে নিবেন, আপনার ইমেইল এর ধরন বুঝবেন এবং আপনার Audienceদের জেনে যাবেন আর তার সাথে আপনার কাছে কোয়ালিটি পিপল থাকবে তখন আপনি আপনার Email marketing campaign এর প্ল্যান শুরু করতে পারেন।

এখান থেকে আপনি ক্যাম্পেইন এর অভারভিউ পাবেন।

Kuno Creative বলে থাকে যে , যদি আপনি আপনার কাস্টমারদের ই-মেইল করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই সেগুলো Timely, Relevant, Interesting এবং Valuable এর উপর চিন্তা করে তৈরি করতে হবে।

উদ্বাহরণস্বরুপ , অনেক কোম্পানি এমন আছে যারা তাদের নতুন সাবস্ক্রাইবারদের স্বাগত জানানোর জন্যে একটা ছোট্ট ইমেইল সিরিস দেয়।

যেখানে সাবস্ক্রাইবাররা সেই কোম্পানির প্রোডাক্টস এবং সার্ভিস সম্পর্কে Overview পেয়ে থাকে। যেমনঃ ধরুন এস.এ কর্পোরেশন ৪টি Emails এর সিরিস পাঠায়।

আর Email এর Subject lines হচ্ছেঃ

  • Welcome to এস.এ কর্পোরেশন
  • এ সপ্তাহে আপনার চাহিদাগুলো মেটাতে আপনার কি কি প্রয়োজন?
  • এস.এ কর্পোরেশন এর সাথে আপনার প্ল্যান তৈরি করুন।
  • আপনার পরবর্তী deadline হিট করুন।

এই চারটি ধাপের ই-মেইল আপনি ২-৩ দিন অন্তর অন্তর পাঠাতে পারেন এবং শেষ ইমেইলটিতে পুরো সপ্তাহের অভারভিউ রাখতে পারেন।   

আপনার Subscribersদেরকে প্রায়ই ইমেইল করে অতিরঞ্জিত করার কোনো প্রয়োজন নেই। এটা তাদের Spam button ক্লিক করতে উৎসাহ করবে বরং।

আপনি “Opt down” অপশনটি যুক্ত করতে পারেন, যাতে সাবস্ক্রাইবার যারা আপনার ইমেইল পছন্দ করেন কিন্তু প্রায়ই তা চান না, তা আপনি যেনে যাবেন।

এতে আপনি স্প্যাম এর হাত থেকে বেঁচে যেতে পারেন। একবার যখন এই সব কিছু সাজানো হয়ে যাবে তখন আপনি আপনার লেখা শুরু করতে পারেন ই-মেইল এর জন্যে।

8. আপনার Subject Lineকে Craft করুনঃ

একটা Successful email marketing campaign এর ক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো starting point হচ্ছে এর Subject line।

এটা খুবই Crucial role করে থাকে মানুষের থেকে আপনার ই-মেইল এ click পাওয়ার জন্যে।

আপনার ব্লগ পোস্টের হেডলাইনের মতো আপনার ই-মেইল এর সাব্জেক্ট লাইনও এমন হতে হবে যেনো মানুষ সহজেই আকৃষ্ট হয়ে যায় এবং উপলব্ধি করতে পারে যে এটা তার জন্যে প্রয়োজনীয় কিনা।

Subject line তৈরি করার ক্ষেত্রে আপনাকে কিছু জিনিস মাথায় রাখতে হবে। আপনি Impression এর জন্যে কখনই বেশি শব্দের Subject line বানাবেন না।

Campaign Monitor’s data থেকে জানা গেছে যে বেশির ভাগ subject lines এর range ৪১-৫০ characters এর হওয়া উচিত।

এমনকি এর চেয়ে কম ওয়ার্ড এর subject line হলে মোবাইল স্ক্রিন এ দেখা যাবে। তাহলে বুঝতেই পারছেন ছোট subject line এড করা কতটা বুদ্ধিমানের কাজ।

যেগুলো আপনার Subject lines improving ক্ষেত্রে এড করতে পারেনঃ

  • কাস্টমারদের বলা যে এই ই-মেইল খুললে তারা কি জানতে পারবে।
  • Subject line এ যখন আপনি মানুষের নাম উল্লেখ করবেন তখন দেখবেন এটা আপনার Engagement আরো বাড়াবে।
  • এমন Words ব্যবহার করা থেকে দূরে থাকুন যেগুলো Spam হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ায়।

9. Write the Copy

এরপরের কাজ হচ্ছে আপনার  Email marketing copy এর জন্যে লেখা। সবচেয়ে ভালো ফল পাওয়ার জন্যে আপনাকে অবশ্যই আপনার কপিটা ছোটো করা উচিত। আর প্রথম দিকেই অফার দেয়া থেকে বিরত থাকুন।

Subscribersদের নাম দিয়ে শুরু করুন। Personalized emails গুলো বেশির ভাগই সফল হয়। Bufferও এটাই suggests করে, যেনো আমরা আমাদের ইমেইল গুলো যতোটা পারি Personalize করি।

এগুলো বেশি Targeted দেখায় এবং সফলও হয়। অনেক স্টাডিতে এটাও দেখা গেছে যে এর ফলে ৫০% ক্লিক রেট বেড়ে যায়।

আরো কিছু পয়েন্ট আছে যা আপনি আপনার Email copy তে Include করতে পারেনঃ

  • একটা Personal story-  এটা খুবই প্রভাবিত একটা টপিক হতে পারে আপনার ইমেইল ক্যাম্পেইন সফল করার জন্যে।
  • মুল্যবান কিছু পরিসেবা দেয়া Readersদের কাছে- এটা একটা খন্ড কন্টেন্টঢতে পারে, কোন গুরুত্বপূর্ণ তথ্যও হতে পারে। প্রিষ্কার ভাবে তাদের বুঝান যে আপনাদের এই সেবা তার কি কি কাজে লাগতে পারে। এতে সাবস্ক্রাইবাররা বেশি ক্লিয়ার থাকবে আপনার প্রোডাক্ট এর ব্যাপারে।
  • একটা Poll, Survey, GIF অথবা video- এগুলো প্রমাণিত পদ্ধতি যে এগুলো Engagement আরো বেশি বাড়ায়। 

10. আপনার Email Marketing Design এর উপর ফোকাস করুনঃ

Email design একটি Successful email marketing campaign এর ক্ষেত্রে অনেক প্রভাব ফেলে। যদি আপনার Emails ভালো Look না দেয় তাহলে অনেক দুঃখের সাথে বলতে হয় যে আপনি কাস্টমারদের কাছে কখন পৌছাতে পারবেন না।

কারন আপনার  ইমেইলটি সাজানোর মধ্যে নান্দনিকতা থাকতে হবে। যাতে ইমেইলটি খুললে খুব সহজ প্রতীয়মান হয়। এতে মানুষ পরে আরাম পাবে এবং ভবিষ্যত ইমেইল গুলো ওপেন হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে।

আপনার Email template গুলো অবশ্যই মোবাইল এ খোলার উপযোগী হতে হবে। তাই আপনাকে নিশ্চিত এগুলো মাথায় রাখতে হবে যে কেমন ডিজাইন দিবেন এবং কতো সাইজ হলে আপনার মোবাইল , কম্পিউটার এ ওপেন করলে ঠিক থাকবে।

বেশির ভাগ ভালো Email গুলোতে Images এর চেয়ে লেখা বেশি থাকে। এটাতে কোনো সন্দেহ নেই যে ছবি আপনার ইমেইলকে আরো বেশি Attractive করবে, কিন্তু অনেকের ইমেইল এ ছবি Disable হয়ে থাকে।

সেই ক্ষেত্রে আপনার ইমেইলটি কাস্টমারের কাছে সহজলভ্য হবেনা, কারন তিনি সম্পূর্ণ তথ্যটি পেলোনা।

আরেকটা কথা, ছবির মধ্যে তথ্য অন্তর্ভুক্ত করবেন না এবং Alt tags ব্যবহার করবেন আপনার ছবিটি বর্ণনা করার জন্যে।

এতে কাস্টমাররা ছবি না দেখতে পেলেও সেটা কোন বিষয়ের তা জানতে পারবে।

11. Test এবং Track

অবশেষে আমরা শেষ ধাপটিতে পদার্পণ করলাম। ইমেইল পাঠানো হচ্ছে আপনার প্রথম ধাপ, email marketing সফল করার ক্ষেত্রে।

আর এর মাধ্যমে সামনের ইমেইল ক্যম্পেইন গুলো যেনো আরো ভালো ভাবে করতে পারেন, সেজন্যে ডাটা গুলো সংরক্ষণ করে রাখুন।

এর মানে হচ্ছে সবকিছু Testing করা, যেমনঃ Design এবং layout, Email marketing copy, Subject lines এবং Calls to action।

আপনি Email analytics মনিটর করার মাধ্যমে সব ধরনের ধারণা নিতে পারবেন যে, আপনি  যেই পদ্ধতি গুলো অবলম্বন করেছেন সেগুলোর কোনটা কাজ করছে আর কোনটা করছে না।

আর Opens, Clicks, Unsubscribes এবং Forwards এর তথ্য যেনে রাখলে আপনি বুঝতে পারবেন যে ভবিষ্যতে কাদের কেমন ইমেইল সেন্ড করা উচিত হবে।

আসলে কথা বললে বলতেই হয়, আর এসবতো বলে শেষ করার মতো নয়। পরিশেষে এই বলব উপরের Email Marketing Strategy গুলো পর্যায়ক্রমে সম্পন্ন করার মাধ্যমে আপনি নিশ্চিত একটা ভালো ফল ইন-শাহ-আল্লাহ পাবেনই।

আমাদের কিছুনা কিছু ভুল আসলে থেকেই যায় আর সেগুলো শুধরানোর মাধ্যমেই আমরা হয়ে উঠতে পারি সফল ইমেইল মার্কেটিং ক্যাম্পেইনার।

আরো বেশি বেশি তথ্য জানার জন্যে কমেন্ট অপশন এ কমেন্ট করুন এবং আমাদের সাথেই থাকুন।